পে-অর্ডারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধ বিধিমালা, ২০০৭

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

নিবন্ধন পরিদপ্তর

প্রজ্ঞাপন

তারিখ, ১৯ অগ্রহায়ন, ১৪১৭ বঙ্গাব্দ / ৩ ডিসেম্বর, ২০০৭ খ্রিস্টাব্দ

এস. আর. ও নং- ২৭২-আইন/২০০৭।- Registration Act, 1908 (Act No. XVI of 1908), এর ধারা ৬৯ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে মহা-পরিদর্শক, সরকারের অনুমোদনক্রমে নিম্নরূপ বিধিমালা প্রণয়ন করিলেন, যথাঃ-

১। বিধিমালার নাম ও প্রয়োগঃ- (১) এই বিধিমালা পে-অর্ডারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধ বিধিমালা, ২০০৭ নামে অভিহিত হইবে।

(২) মহা-পরিদর্শক, সরকারী গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, কোন কোন জেলা বা উপজেলায় এবং কখন হইতে এই বিধিমালা কার্যকর হইবে তাহা নির্ধারণ করিবেন।

২। সংজ্ঞা।- বিষয় বা প্রসঙ্গের পরিপন্থী কোন কিছু না থাকিলে, এই বিধিমালায়-

(ক) “আইন” অর্থ Registration Act, 1908 (Act No. XVI of 1908);

(খ) “ছক” অর্থ এই বিধিমালার ছক;

(গ) “রেজিস্ট্রেশন ফি” অর্থ এই বিধিমালার উদ্দেশ্য পূরণকল্পে, সরকার কর্তৃক জারীকৃত ২৬ জুন, ১৯৭৮ সনের প্রজ্ঞাপন নং- S.R.O-147-L/78 দ্বারা প্রণীত Table of Fees এর “1 Ordinary Fees” শিরোনামাধীন আইনের ধারা ৮০ এর অধীন দলিল নিবন্ধনের জন্য ২৪ (চব্বিশ) হাজার টাকার ঊর্ধে মূল্যের দলিলের A অংশের ফি এবং ক্ষেত্রমত, উক্ত ফি’র সহিত E, M(a), M(b) এবং N অংশের ফি;

(ঘ) “রেজিস্ট্রেশন বিধিমালা” অর্থ আইনের ধারা ৬৯ এর অধীন প্রণীত Bangladesh Registration Rule, 1973;

 


(খ) পে-অর্ডার প্রাপ্তির পরবর্তী কার্যদিবসে ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে উক্ত পে-অর্ডার উপ-বিধি ৪(১) এর অধীন পে-অর্ডার ইস্যুকারী এবং ট্রেজারী দায়িত্বপালনকারী সোনালী ব্যাংকে জমা দিবেন;

(গ) দফা (খ) এর অধীন পে-অর্ডার জমা করিবার পর সংশ্লিষ্ট ব্যাংক হইতে ট্রেজারী চালান নগদায়নপূর্বক উহার কপি সংগ্রহ করিবেন; এবং

(ঘ) দফা (খ) এর অধীন পে-অর্ডার সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের ট্রেজারীতে জমার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার উদ্দেশ্যে, যে মাসে পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধিত রেজিস্ট্রেশন ফি ট্রেজারীতে জমা দেওয়া হইয়াছে উহার পরবর্তী মাসের প্রথম সপ্তাহে-

(অ) জেলা হিসাবরক্ষণ বা ক্ষেত্রমত, উপজেলা হিসাবরক্ষণ অফিস হইতে সি.টি.আর (Consolidated Treasury Receipt); এবং

(আ) যে ব্যাংকে পে-অর্ডার জমা দেওয়া হইয়াছে সে ব্যাংক হইতে ব্যাংক বিবরণী সংগ্রহ করিবেন।

৯। পে-অর্ডার নগদায়ন না হওয়া, ইত্যাদি সংক্রান্ত বিধান।- (১) দফা ৮ (গ) এর অধীন পে-অর্ডার নগদায়ন করা না গেলে বা পে-অর্ডার জাল বলিয়া প্রমাণিত হইলে, সংশ্লিষ্ট ব্যাংক লিখিতভাবে ৭ (সাত) দিনের মধ্যে উক্ত বিষয় সাব-রেজিস্ট্রারকে অবহিত করিবে।

(২) সাব-রেজিস্ট্রার উপ-বিধি (১) এর অধীন ব্যাংক প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর আইন ও ইহার অধীন প্রণীত বিধিমালার বিধান অনুসরণ করিয়া, দলিল গ্রহীতাকে নোটিশ প্রাপ্তির ৩ (তিন) দিনের মধ্যে পে-অর্ডারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধ করিবার জন্য নির্দেশ প্রদান করিতে পারিবেন।

১০। কতিপয় ক্ষেত্রে দলিলের কপি হস্তান্তর নিষিদ্ধ, ইত্যাদি।- দফা ৮ (গ) অনুযায়ী পে-অর্ডারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন ফি নগদায়ন বিষয়ে নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বা উপ-বিধি ৯ (১) এর অধীন পে-অর্ডার জাল বলিয়া প্রমাণিত হইলে, সাব-রেজিস্ট্রার সংশ্লিষ্ট দলিল গ্রহীতাকে কোন দলিলের অনুলিপি, প্রত্যায়িত কপি বা মূল দলিল সরবরাহ করিবেন না, এবং উক্ত ক্ষেত্রে উক্ত দলিল বাতিলের যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করিতে হইবে।

১১। সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক পে-অর্ডার হেফাজত।- উপ-বিধি ৪ (১) এর অধীনে পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধিত রেজিস্ট্রেশন ফি বিধি ৮ (খ) এর অধীন ট্রেজারীতে জমা না দেওয়া পর্যন্ত সাব-রেজিস্ট্রার ব্যক্তিগতভাবে উহার নিরাপদ হেফাজতের জন্য দায়ী থাকিবেন।

১২। দলিলের রেজিস্ট্রেশন ফি মূল্যায়ন।- (১) সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের নোটিশ বোর্ডে দলিলের ফি, সরকার কর্তৃক নির্ধারিত খাতের কোডসমূহ ও প্রদেয় করের তালিকা এমনভাবে টাঙ্গাইতে হইবে, যাহাতে সহজে উহা সর্বসাধারণের দৃশ্যমান হয় এবং রেজিস্ট্রিতব্য দলিলের পক্ষগণ নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গানো ফি’র তালিকা দেখিয়া রেজিস্ট্রেশন ফি মূল্যায়নপূর্বক সাব-রেজিস্ট্রারের পূর্বানুমোদন গ্রহণ ব্যতিরেকে পে-অর্ডারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধ করিতে পারে।

(২) উপ-বিধি (১) অনুযায়ী দলিলের রেজিস্ট্রেশন ফি মূল্যায়ন করিতে না পারিলে দলিলের পক্ষগণ কোন প্রকারের ফি প্রদান না করিয়া সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট হইতে দলিল রেজিস্ট্রেশন ফি মূল্যায়ন করাইয়া নিতে পারিবেন।

১৩। সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক মাসিক বিবরণী প্রেরণ।- (১) সাব-রেজিস্ট্রার পে-অর্ডারের মাধ্যমে পরিশোধিত রেজিস্ট্রিকৃত দলিল সম্পর্কে একটি মাসিক বিবরণী সংশ্লিষ্ট মাসের পরবর্তী মাসের ৭ (সাত) দিনের মধ্যে জেলা রেজিস্ট্রারের নিকট প্রেরণ করিবেন।

(২) উক্ত মাসিক বিবরণীর সহিত দফা ৮ (গ) এর অধীন সংগৃহীত ব্যাংক বিবরণীর কপি সংযুক্ত করিতে হইবে।

১৪। জেলা রেজিস্ট্রার কর্তৃক মাসিক বিবরণী প্রেরণ।- উপ-বিধি ১৩ (১) এর অধীন সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক প্রেরিত বিবরণীর ভিত্তিতে জেলা রেজিস্ট্রার একটি মাসিক বিবরণী প্রতিমাসের ১০ তারিখের মধ্যে মহা-পরিদর্শক বরাবরে প্রেরণ করিবেন।

১৫। পরিদর্শন।- (১) এই বিধিমালার যথাযথ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করিবার উদ্দেশ্যে, মহা-পরিদর্শক, তৎকর্তৃক এতদুদ্দেশে ক্ষমতাবান নিবন্ধন পরিদপ্তরের কোন পরিদর্শক বা তাহার অধীনস্থ অন্য কোন কর্মকর্তা অথবা জেলা রেজিস্ট্রার সাব-রেজিস্ট্রি অফিস পরিদর্শন করিতে পারিবেন।

(২) মহা-পরিদর্শকের নিকট হইতে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন পরিদর্শক, অন্য কোন কর্মকর্তা বা জেলা রেজিস্ট্রার প্রতি ৪ (চার) মাসে ন্যূনতম পক্ষে একবার সাব-রেজিস্ট্রি অফিস পরিদর্শন করিবেন।

 

ছক-ক

রেজিস্ট্রেশন ফি বহি

[বিধি ৬ দ্রষ্টব্য]

দলিলের ক্রমিক নং দলিলের তারিখ দলিলের প্রকারভেদ যাহার নিকট হইতে প্রাপ্ত সম্পত্তির মূল্য অংকে কোন দফায় রেজিস্ট্রেশন ফি দেয় ফি’র পরিমাণ (নগদে) ফি’র পরিমাণ পে-অর্ডারের মাধ্যমে পে-অর্ডার নং, তারিখ ও ব্যাংকের নাম গ্রাহ্য অথবা অগ্রাহ্য হওয়ার তারিখ রেজিস্টার বই অথবা আমমোক্তার নামা রেজিস্টারের দলিল নং দলিল রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হওয়ার তারিখ রেজিস্ট্রি ভুক্ত বই বালাম ও পৃষ্ঠা ফেরত দেওয়ার তারিখ প্রতিলিপি অথবা স্মারক লিপির তারিখ ও সংখ্যা প্রতিলিপি অথবা স্মারক লিপি প্রেরণের তারিখ মন্তব্য
১০ ১১ ১২ ১৩ ১৪ ১৫ ১৬ ১৭

 

“………………. সনের রেজিস্ট্রেশন ফি বহির …………………… নং ক্রমিকের দলিলের উপর প্রদেয় রেজিস্ট্রেশন বাবদ প্রদেয়………………….টাকা …………………. নং পে-অর্ডার এ …………………………. তারিখে …………………… ব্যাংকের…………………….. শাখায় পরিশোধিত।

তারিখঃ

সাব-রেজিস্ট্রার

নাম, দস্তখত ও সীল।”

 

 

মোঃ মাসদার হোসেন

মহা-পরিদর্শক, নিবন্ধন।

 

 

396 total views, 2 views today

Share this post:
পোস্টটি শেয়ার করুন।

No comments yet.

Please Post Your Comments & Reviews

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright @ 2020 landregistrationbd.com All RIght Reserved